৪র্থ অধ্যায়ঃ সামষ্টিক পর্যায়ে উৎপাদন

উৎপাদন ব্যবস্থাপনা ও বিপণন / উৎপাদন ব্যবস্থাপনা ও বিপণন (১ম পত্র)

৪র্থ অধ্যায়ঃ সামষ্টিক পর্যায়ে উৎপাদন


সামষ্টিক পর্যায়ে উৎপাদন বলতে আমরা কি বুঝি?সহজ ভাবে বলতে গেলে কোন কিছু উৎপাদন করা যা কিনা একজনের জন্য না করে সবার জন্য করা।আসলেই এরকম,যখন উৎপাদন ব্যাক্তিগত না হয়ে জাতীয় পর্যায়ে হয়, তাই সামষ্টিক পর্যায়ে উৎপাদন। 

খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি অধ্যায়। প্রতিবছরই একটি প্রশ্ন থাকে এ অধ্যায় থেকে।চলো আমরা দেখে নেই এই অধ্যায়ের গুরুত্বপূর্ণ টপিক গুলো এবং তাদের আলোচনা, 

গুরুত্বপূর্ণ টপিকসঃ

  • সামষ্টিক পর্যায়ে উৎপাদনের ধারণা। 
  • মোট দেশজ উৎপাদন/GDP এবং নিট দেশজ উৎপাদন/NDP।
  • মোট জাতীয় উৎপাদন/GNP এবং নিট জাতীয় উৎপাদন/NNP।
  • মাথাপিছু আয়।
  • ব্যয়যোগ্য আয় এবং হস্তান্তরযোগ্য ব্যয়।

CQ স্পেশালঃ

  • GDP,NDP,GNP,NNP,মাথাপিছু আয় নির্ণয় জানতে হবে।


সামষ্টিক পর্যায়ে উৎপাদনের ধারণাঃ

ইংরেজি Macro শব্দটির অর্থ হলো সামষ্টিক। গ্রিক শব্দ Makros থেকে Macro শব্দটির উৎপত্তি। অর্থনৈতিক কোন বিষয়কে যখন সামগ্রিক বা জাতীয় পর্যায়ে বিশ্লেষণ করা হয়, তখন তাকে সামষ্টিক অর্থনীতি বলা হয়।অর্থাৎ এক্ষেত্রে উৎপাদনের সময় শুধু একজনের চাহিদা বিবেচনা না করে পুরো একটি গোষ্ঠীর চাহিদা বিবেচনা করা হয়।


মোট দেশজ উৎপাদন/GDP এবং নিট দেশজ উৎপাদন/NDP:

GDP:

একটি নির্দিষ্ট সময়ে সাধারণত এক বছরে দেশের অভ্যন্তরে উৎপাদিত চূড়ান্ত পর্যায়ের সকল দ্রব্য ও সেবাকর্মের আর্থিক মূল্যকে মোট দেশজ উৎপাদন বা GDP বলে।এখানে বাংলাদেশের EPZ এ যে সকল বিদেশি প্রতিষ্ঠান আছে তাদের উৎপাদন বিবেচনা করা হয় কিন্তু প্রবাসীদের আয় বিবেচনা করা হয় না।

GDP নির্ণয়ের সূত্রঃ

GDP=ভোগ ব্যয়/C+বিনিয়োগ ব্যয়/I+সরকারি ব্যয়/G।

NDP:

GDP থেকে উৎপাদনে ব্যবহৃত স্থানী সম্পদের ব্যবহারজনিত অবচয় বাদ দিলে যা অবশিষ্ট থাকে তাই নিট দেশজ উৎপাদন বা NDP। 

NDP নির্ণয়ের সূত্রঃ

NDP=GDP-CCA(মুলধনের ক্ষয়ক্ষতিজনিত ব্যয়)


মোট জাতীয় উৎপাদন/GNP এবং নিট জাতীয় উৎপাদন/NNP:

GNP:

সাধারণত একটি আর্থিক বছরে কোনো দেশে শুধু ঐদেশের নাগরিক দ্বারা যে পরিমান চূড়ান্ত দ্রব্য বা সেবাকর্ম উৎপাদিত হয় তার বাজার মূল্যকে মোট জাতীয় উৎপাদন বা GNP বলে।এখানে প্রবাসীদের আয় বিবেচনা করা হয় কিন্তু দেশে বিদেশিদের আয় বিবেচনা করা হয় না।এছাড়া কোন বেআইনি আয়ও GNP তে আসে না।

GNP নির্ণয়ের সূত্রঃ

আয়ের ভিত্তিতে, 

GNP=খাজনা/R+মজুরি/W+সুদ/r+মুনাফা/I

 ব্যয়ের ভিত্তিতে,

GNP=GDP+নিট রপ্তানি আয়(রপ্তানি/X-আমদানি/M)।

NNP:

GNP থেকে উৎপাদনে ব্যবহৃত মূলধনসমূহের অবচয় জনিত ব্যয় বাদ দিলে যা অবশিষ্ট থাকে তাকে নিট জাতীয় উৎপাদন বা NNP বলে।

NNP নির্ণয়ের সূত্রঃ

NNP=GNP-CCA(মূলধনের ক্ষয়ক্ষতিজনিত ব্যয় বা অবচয়)


মাথাপিছু আয়ঃ

সাধারণ অর্থে মাথাপিছু আয় বলতে কোন দেশের জনসাধারণের গড় বার্ষিক আয়কে বুঝায়।অর্থাৎ একটি নির্দিষ্ট সময়ে সাধারণত এক বছরে কোনো দেশের মোট জাতীয় আয়কে ঐ দেশের মোট জনসংখ্যা দ্বারা ভাগ করলে যা পাওয়া যায় তাই মাথাপিছু আয়।

মাথাপিছু আয় নির্ণয়ের সূত্রঃ

PCI=GNP÷মোট জনসংখ্যা। 


ব্যয়যোগ্য আয় এবং হস্তান্তরযোগ্য ব্যয়ঃ

ব্যয়যোগ্য আয়ঃ দেশের জনগন যে আয় সরাসরি ভোগ,সঞ্চয় ও বিনিয়োগে ব্যয় করতে পারে তাকে ব্যয়যোগ্য আয় বলে।অর্থাৎ ব্যক্তিগত আয় থেকে কর এবং কর বাদে অন্যান্য আনুষঙ্গিক খরচ বাদ দেয়ার পর যা অবশিষ্ট থাকে তাকেই ব্যয়যোগ্য আয় বলে।

হস্তান্তরযোগ্য পাওনা/ব্যয়ঃ হস্তান্তরযোগ্য ব্যয় বলতে এক হাত থেকে অন্য হাতে পন্যের স্থানান্তরকে বুঝায়।চলতি উৎপাদন কার্যক্রমকে প্রভাবিত না করে অর্থনীতির একটি ক্ষেত্র থেকে অন্য ক্ষেত্রে অর্থ বা আয়ের স্থানান্তরই হলো হস্তান্তরযোগ্য পাওনা।

নিচে GDP,NDP,GNP,NNP ও মাথাপিছু আয় নির্ণয় করে দেখানো হলোঃ

এইছিল ৪র্থ অধ্যায়ের গুরুত্বপূর্ণ টপিকসমূহ ও তাদের বিস্তারিত আলোচনা। এখানে টপিকগুলোর স্পেসিফিক সঙ্গা প্রদান করা হয়েছে।তোমরা এই সঙ্গাগুলোই শিখে নিও।এর বাইরে থেকে সাধারণত প্রশ্ন আসে না।তাই সুন্দর করে নোট করে পড়ে নাও।কোথাও বুঝতে সমস্যা হলে কমেন্ট করে জানাও।

Leave your thought here

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Free 10 Days

Master Course Invest On Self Now

Subscribe & Get Your Bonus!
Your infomation will never be shared with any third party