বাংলা নববর্ষ

JSC / গদ্য / বাংলা

বাংলা নববর্ষ

মূলভাব :

বাঙালির জাতীয় সংস্কৃতির একটি গুরুত্বপূর্ণ উৎসব নববর্ষ। নববর্ষ আনন্দ, উচ্ছ্বাস ও প্রত্যাশার উৎসব। পুরাতন সব কিছুকে ভুলে নতুন করে শুরু করার এক নতুন প্রয়াস যেন নববর্ষ। লেখক এই ‘বাংলা নববর্ষ ‘ প্রবন্ধে নবর্বষের ইতিহাস,বাঙালির সাংস্কৃতিক জীবনে নববর্ষের গুরুত্ব, নববর্ষকে ঘিরে পুরো দেশব্যাপী বিভিন্ন আনুষ্ঠানিকতা, উৎসব ইত্যাদি আলোচনা করেছেন। আজকের বাংলাদেশ যে স্বাধীন হতে পেরেছে, তার পেছনে নববর্ষের প্রেরণাও সক্রিয় ছিল। কারণ, পাকিস্তানিরা বাঙালির প্রাণের উৎসব নববর্ষ উদ্যাপনে বাধা দিয়েছিল এবং এর প্রতিবাদে রুখে দাঁড়িয়েছিল তারা। এ প্রবন্ধে বাংলা সন প্রচলনের কথা আলোচিত হয়েছে। এ নিয়ে মতান্তর থাকলেও ধরে নেওয়া হয় সম্রাট আকবরের সময় এ সনের গণনা আরম্ভ হয়। পরে জমিদার ও নবাবেরা নববর্ষে পুণ্যাহ অনুষ্ঠানের আয়োজন করতেন। নববর্ষে হালখাতা, বৈশাখী মেলা, ঘোড়দৌড়, বিভিন্ন লোকমেলার আয়োজন করে সাধারণ মানুষ এ উৎসবকে প্রাণে ধারণ করেছে। বাঙালি গৃহিণীরাও আমানিসহ নানা ব্রত-অনুষ্ঠানের মাধ্যমে বছরের প্রথম দিনটি উদ্যাপন করে থাকে। পাহাড়ি অবাঙালি জনগোষ্ঠীও বৈশাখী অনুষ্ঠানের মাধ্যমে নিজেদের মতো করে তারা নববর্ষ উদ্যাপন করে। সূচনার পর থেকে এই নববর্ষ পালনে নানা মাত্রা সংযোজিত হয়েছে। তবে এ উৎসবকে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের পরিবার বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে পালন করায় সে আয়োজন দেশময় ছড়িয়ে পড়ে। ভাষা আন্দোলনের পর থেকে আমরাও নববর্ষ উৎসব ব্যাপকভাবে পালন আরম্ভ করি এবং এখন এই উৎসব বাঙালির জীবনে গৌরবময় জাতীয় উৎসবে পরিণত করেছে।

লেখক পরিচিতি:

>শামসুজ্জামান খান মানিকগঞ্জ জেলার সিংগাইর থানার চারিগ্রামে ১৯৪০ খ্রিস্টাব্দে জন্মগ্রহণ করেন।

> তিনি কলেজ -বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ছিলেন।

তিনি দেশের গুরুত্বপূর্ণ প্রতিষ্ঠানসমূহ বাংলা একাডেমি (২০০৯ সালের মে মাসে যোগদান করেন) , শিল্পকলা একাডেমি , জাতীয় জাদুঘরের মহাপরিচালক ছিলেন।

> লেখক, গবেষক ও ফোকলোরবিদ হিসেবে দেশে -বিদেশে খ্যাতিমান ছিলেন।

>প্রবন্ধগ্রন্থ : নানা প্রসঙ্গ, গণসঙ্গীত, মাটি থেকে মহীরুহ, বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে আলাপ ও প্রাসঙ্গিক কথকতা, মুক্তবুদ্ধি, ধর্মনিরপেক্ষতা ও সমকাল, আধুনিক ফোকলোর চিন্তা, ফোকলোর চর্চা ইত্যাদি।

>রম্যরচনা :  ঢাকাই রঙ্গরসিকতা, গ্রাম বাংলার রসিকতা

>শিশুসাহিত্য : দুনিয়া মাতানো বিশ্বকাপ, লোভী ব্রাহ্মণ ও তেনালীরাম, ছোটদের অভিধান (যৌথ)

>শামসুজ্জামান খান তাঁর পেশাগত জীবনে বহু পুরস্কার লাভ করেছেন। যেমন :  অগ্রণী ব্যাংক পুরস্কার, শহীদ সোহরাওয়ার্দী জাতীয় গবেষণা পুরস্কার, বাংলা একাডেমি ও একুশে পদক সহ আরও অনেক।

বৃন্তি সাহা

শিক্ষা ও গবেষণা ইনস্টিটিউট

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়    

Leave your thought here

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Free 10 Days

Master Course Invest On Self Now

Subscribe & Get Your Bonus!
Your infomation will never be shared with any third party