অধ্যায় ৯ঃ ব্যক্তিক বিক্রয় ও বিক্রয়ীকতা

উৎপাদন ব্যবস্থাপনা ও বিপণন / উৎপাদন ব্যবস্থাপনা ও বিপণন (২য় পত্র)

অধ্যায় ৯ঃ ব্যক্তিক বিক্রয় ও বিক্রয়ীকতা

 গুরুত্বপূর্ণ টপিক সমূহ

 ১. ব্যক্তিক বিক্রয় ধারণা

 ২. ব্যক্তিক বিক্রয় এর প্রয়োজনীয়তা ও গুরুত্ব 

৩. বিক্রয়ীকতার  ধারণা ও   প্রয়োজনীয়তা

 ৪. বিক্রযয়ীকতা  কি শিক্ষাগত না জন্মলব্ধ

 ৫.বিক্রয় কর্মীর গুণাবলী 

ব্যক্তিক বিক্রয় ধারণা :

ব্যক্তিক বিক্রয় হচ্ছে এমন একটি প্রক্রিয়া যার মাধ্যমে বিক্রয়কর্মী সরাসরি ক্রেতাসাধারণের সামনে উপস্থিত হয়ে ব্যক্তিগত কথোপকথনের দ্বারা প্রতিষ্ঠানের পণ্য ও সেবা সম্পর্কিত তথ্য উপস্থাপনের মাধ্যমে তাদেরকে উক্ত পণ্য বা সেবা ক্রয়ে  প্ররোচিত বা উৎসাহিত করে।  

ব্যক্তিক বিক্রয় এর প্রয়োজনীয়তা/ গুরুত্ব    :

বিক্রয় এমন এক ধরনের কার্যক্রম যার মাধ্যমে বিক্রেতা ও ক্রেতার সাধারণের মধ্যে যোগসুত্র হয়ে থাকে। 

ব্যক্তিক বিক্রয় এর গুরুত্ব কে তিন ভাগে ভাগ করা হয়েছে 

১. উৎপাদনকারী দৃষ্টিকোণ থেকে গুরুত্ব।

 ২. ক্রেতা দৃষ্টিকোন থেকে গুরুত্ব। 

৩. সামাজিক দৃষ্টিকোণ থেকে গুরুত্ব। 

ব্যক্তির বিক্রয়ের মাধ্যমে ক্রেতার সাথে বিক্রয় কর্মীর সরাসরি যোগাযোগ স্থাপিত হয় বলে একটি বিপণন প্রসারের অন্যতম কার্যকর হাতিয়ার তাই এর গুরুত্ব অনেক।

বিক্রয়ীকতার ধারণা

বিক্রয়ীকতা হলো এমন একটি কলা ও কৌশল যার মাধ্যমে বিক্রেতা সম্ভাব্য ক্রেতাদের বশীভূতকরণ এর মাধ্যমে তাদেরকে তার পণ্য বা সেবার স্থায়ী নিয়মিত সন্তুষ্ট কেতায় পরিণত করার মাধ্যমে নিজের জন্য সর্বাধিক মুনাফা অর্জন নিশ্চিত করে। 

বিক্রয়ীকতার প্রয়োজনীয়তা 

বিক্রয় হচ্ছে বিপণনের একটি গুরুত্বপূর্ণ ও জটিল কাজ। বিক্রয়ের এই জটিল কাজটিকে সুষ্ঠুভাবে সম্পাদন করার জন্য বিক্রেতা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। বিক্রয়ীকতার  মাধ্যমে বিক্রয় কার্যটি সহজ হয়। নিম্নে তার গুরুত্ব আলোচনা করা হলো :

১. বিপণন খরচ কম  করে

 ২.  বৃহদায়তন উৎপাদন 

৩. উপযোগ ও চাহিদা বিধান

 ৪. জীবনধারণের মানোন্নয়ন

৫. চাহিদা সৃষ্টি 

৬.নমনীয় কৌশল 

৭. বাজার সম্প্রসারণ 

৮. চাহিদার স্থিতিশীলতা রক্ষা

 ৯. প্রতিযোগিতা মোকাবেলা 

১০.পণ্য বা সেবার প্রতি আস্থা

বিক্রয়ীকতা কি শিক্ষাগত নাকি  জন্ম লব্ধ 

বিক্রেতাকে শিক্ষালব্ধ বলার কারণ:

 একজন বিক্রয় কর্মীর শিক্ষার মাধ্যমে বিভিন্ন ধরনের বিক্রয় নৈপুণ্য কলা-কৌশল অর্জন করে থাকে যার কারণে অতি সহজে ক্রেতাসাধারণ কে আকৃষ্ট করে সহজেই কাজটি সম্পাদন করা হয়। 

১. পণ্য সম্পর্কিত তথ্য 

২. চাহিদা 

৩. বিক্রয় কৌশল

 ৪. কোম্পানির সম্পর্কিত তথ্য

 ৫. ক্রেতা সম্পর্কিত তথ্য

 ৬. সততা ও সত্যবাদিতা 

 ৭.কল্পনাশক্তি 

৮. সামাজিক গুণ 

বিক্রয়ীকতা জন্ম লব্ধ বলার কারণ:

 একজন বিক্রয় কর্মীর জন্মগত ভাবে বিভিন্ন গুণাবলীর অধিকারী হয়। যা তাকে বিক্রয় কর্মে সফলতা অর্জন করতে সহায়তা করে। 

বিক্রয় কথাকেই জন্মলাভ লব্ধ জন্ম লব্ধ বলার কারণ নিম্নে দেওয়া হল :

১. চেহারা 

২. হাসি 

৩. স্বাস্থ্য 

৪. দৃষ্টিশক্তি 

৫. সুকণ্ঠ



বিক্রয় কর্মীর গুণাবলী 

কোম্পানির উদ্দেশ্য অর্জনের লক্ষ্যে যখন একজন বিক্রয় কর্মীর সাফল্যের সাথে সঠিকভাবেই তার কর্তব্য এবং দায়িত্ব সম্পন্ন করতে পারে তখন তাকে সফল বিক্রয়কর্মী হিসেবে গণ্য করা হয়। 

বিক্রয় কর্মীর কিছু গুণাবলী রয়েছে যার ফলে সহজেই সে বিক্রেতার কাজটি সম্পন্ন করতে পারে। নিম্নে বিক্রয় কর্মীর গুণাবলী সম্পর্কে আলোচনা করা হলো :

১. শারীরিক গুণাবলী 

ক. দৃশ্যমান

# স্বাস্থ্য 

#চেহারা 

# হাসি 

# ভাব-ভঙ্গি  

# মুদ্রাদোষ 

. অদৃশ্যমান 

  • সুকণ্ঠ
  •  শ্রবণশক্তি
  •  ঘ্রাণশক্তি
  •  দৃষ্টিশক্তি
  •  পরিছন্নতা ইত্যাদি 

. মনস্তাত্ত্বিক গুণাবলী 

  • আশাবাদ 
  • উদ্যম 
  • আত্মবিশ্বাস
  •  দৃঢ়প্রত্যয় 
  • আন্তরিকতা 
  • কল্পনাশক্তি 
  • আত্মনিয়ন্ত্রণ
  •  শিক্ষা 
  • অধ্যবসায় 

. নৈতিক গুণাবলী 

  • বিশ্বস্ততা
  •  সত্যবাদিতা ও সততা
  •  নির্ভরযোগ্যতা
  •  মানসিক হ্ম্রিপ্রতা 

. সামাজিক গুণাবলি

  • মিসুক সভাব
  • কথোপকথন যোগ্যতা
  •  মার্জিত আদব-কায়দা 
  • সামাজিক গুণ 
  • সামাজিক মূল্যবোধ 

. পেশাগত জ্ঞান 

  • পণ্য সংক্রান্ত জ্ঞান 
  • কোম্পানি সংক্রান্ত জ্ঞান 
  • হিসেবে পারদর্শিতা

Sadia Afrin 

Department of Tourism and Hospitality Management 

University of Dhaka

Leave your thought here

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Free 10 Days

Master Course Invest On Self Now

Subscribe & Get Your Bonus!
Your infomation will never be shared with any third party