অতিথির স্মৃতি

JSC / গদ্য / বাংলা

অতিথির স্মৃতি

মূল বিষয়বস্তু: “অতিথির স্মৃতি” গল্পে কথকের সাথে একটি কুকুরের স্বার্থহীন ও মমতার সম্পর্ক গড়ে ওঠে। মানুষে মানুষে যেমন ভালোবাসার সম্পর্ক গড়ে ওঠে, তেমনি মানুষের সাথে অন্য প্রাণীর‌ও গড়ে ওঠতে পারে। সেই সম্পর্কে থাকে না কোনো স্বার্থ কিংবা দেনাপাওনা। তবে বিভিন্ন সীমাবদ্ধতার কারণে এই সম্পর্কগুলো স্থায়ী হয় না।

গুরুত্বপূর্ণ বিষয়সমূহ:

  • “অতিথির স্মৃতি” গল্পের মূল নাম “দেওঘরের স্মৃতি”।
  • লেখক/কথক দেওঘরে গিয়েছিলেন – বায়ু পরিবর্তনের জন্য, অর্থাৎ অসুখ সারাবার জন্য।
  • গলাভাঙা ভজন শুরু হয় – রাত ৩টা থেকে।
  • পাখিদের মধ্যে সবচেয়ে ভোরে ওঠে – দোয়েল।
  • ইউক্যালিপ্টাস গাছে বসতো – হলদে রঙের এক জোড়া বেনে ব‌উ পাখি।
  • ব্যাধের ব্যবসা – পাখি চালান দেয়া।
  • বেরিবেরির আসামি – বেরিবেরির রোগী।
  • দরিদ্র ঘরেরে মেয়েটির ছিল – তিনটি ছোট ছোট ছেলেমেয়ে।
  • মেয়েটির চোখের চাহনি – ক্লান্ত ।
  • সন্ধ্যার পূর্বেই ঘরে ফেরা প্রয়োজন – বাতব্যাধি গ্রস্তদের।
  • কুকুরটি ছিল – বয়স্ক।
  • কুকুরটি সব কথার উত্তর দিত – লেজ নেড়ে।
  • কুকুরটি এসে বসেছিল – বারান্দার নিচের উঠানে।
  • কথক বামুনঠাকুরকে বলেন  কুকুরটিকে খেতে দিতে।
  • কুকুরকে খাবার দেওয়ায় সবচেয়ে বেশি আপত্তি ছিল – মালির ব‌উয়ের।
  • বাড়তি খাবারের প্রবল অংশীদার ছিল – মালির ব‌উ।
  • মালির ব‌উ খাওয়া সম্পর্কে – নির্বিকারচিত্ত।
  • কুকুরটির ছায়া পড়লো – সিঁড়ির ওপর।
  • অতিথি (কুকুর) ছুটে পালালো – চাকরদের দরজা খোলার শব্দে।
  • কুকুরটিকে তাড়িয়ে দিয়েছিল – মালির ব‌উ‌।
  • লেখক বাড়ি ফিরে যেতে দেরি করলেন – ২দিন।
  • জিনিসপত্রের তদারকিতে সবচেয়ে বেশি উৎসাহ ছিল – কুকুরটির।
  • বখশিশ পেল না – অতিথি (কুকুরটি)।

লেখক পরিচিতি:: শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়

  • জন্ম : ১৮৭৬। পশ্চিমবঙ্গের হুগলি জেলার দেবানন্দপুর গ্রামে।
  • মৃত্যু : ১৯৩৮ সাল । কলকাতা।
  • উপন্যাস : বড়দিদি , পল্লীসমাজ, দেবদাস, শ্রীকান্ত (চার পর্ব), গৃহদাহ, দেনাপাওনা, পথের দাবী, শেষ প্রশ্ন।
  • সম্মাননা : জগত্তারিণী স্বর্ণপদক (কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়) ; ডি.লিট উপাধি (ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়)।
  • তিনি দারিদ্রের কারণে শিক্ষাজীবন সমাপ্ত করতে পারেননি।
  • জীবিকার সন্ধানে রেঙ্গুন গমন করেন।
  • রেঙ্গুনে গিয়ে তাঁর সাহিত্যচর্চা শুরু হয়।
  • সর্বপ্রথম প্রকাশিত হয় -“বড়দিদি” উপন্যাস (“ভারতী” পত্রিকায়)।

তাহিয়া ইসলাম

একাউন্টিং এন্ড ইনফরমেশন সিস্টেমস,

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়।

Leave your thought here

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Free 10 Days

Master Course Invest On Self Now

Subscribe & Get Your Bonus!
Your infomation will never be shared with any third party